ছোট ছোট ছোট ব্লগ কিভাবে বড় আয়ের উতস হতে পারে

পোস্ট  বার দেখা হয়েছে
ইন্টারনেট থেকে আয়ের পদ্ধতিগুলির মধ্যে ব্লগিং অন্যতম গুরুত্বপুর্ন একটি বিষয়। ব্লগিং এর জন্য অফিস প্রয়োজন নেই, নিজের বাড়িতে একটি কম্পিউটারই যথেস্ট। শুধুমাত্র গুগল এডসেন্স বিজ্ঞাপন থেকে বছরে লক্ষ ডলার আয় করার মত ব্লগের উদাহরনের অভাব নেই। আবার এভাবে আয় করতে গিয়ে সফলতা আসেনি তাদের সংখ্যা তার থেকেও বেশি।

অত্যন্ত উচু মানের ব্লগ ভাল ব্যবসা করতে পারছে না অথচ আপাত সাধারন মানের ব্লগ থেকে ভাল আয় হচ্ছে এমন উদাহরনের অভাব নেই। প্রশ্ন থাকা স্বাভাবিক, কোন বিষয়গুলির ওপর ব্লগের সফলতা নির্ভর করে।
সফলতার প্রত্যক্ষ কিছু কারন এখানে তুলে ধরা হচ্ছে।

বাংলাদেশে ব্লগ থেকে বড় ধরনের আয় আশা করার আগে কিছু বাস্তবতা জেনে নেয়া ভাল।
এক সময় বাংলাদেশে অনলাইনে কেনাকাটার প্রচলন ছিলনা। বর্তমানে কিছুটা হয়েছে । পেপল এর মত ব্যবস্থায় মত অনলাইনে লেনদেনের সুযোগ নেই। আয়ের মুল উতস হচ্ছে কোন বিজ্ঞাপনে ক্লিক করা, কোন পন্য বা সেবা কেনা। কেনাকাটার বিষয় যখন কম তখন ভিজিটর বিজ্ঞাপনে ক্লিক করবেন না এটাই স্বাভাবিক।

গুগল বাংলা ব্লগে এডসেন্স অনুমোদন দেয় না। এখানেও মুল কারন অনলাইনে কেনাকাটার সুযোগ না থাকা। ভিজিটর যদি না কেনেন তাহলে তাকে বিজ্ঞাপন দেখানোর প্রয়োজন নেই, এই নীতিতে বাংলা ব্লগে এডসেন্স ব্যবহারের সুযোগ দেয়া হয় না।

এই সমস্যাগুলির সমাধান আপনার হাতে নেই। যা করা সম্ভব তা হচ্ছে বিকল্প ব্যবস্থা গ্রহন করা।
এবারে দেখা যাক সফল ব্লগগুলি যে কারনে সফল হয়েছে।

সঠিক সময়ে সঠিক বিষয় তুলে ধরাঃ ইন্টারনেট সবচেয়ে দ্রুত পরিবর্তনের যায়গা। অন্যকথায়, হুজুগের যায়গা। ব্যবহারকারীরা একে সময় একে ধরনের বিষয়ের দিকে বেশি আগ্রহ দেখান। ব্যবসা সফল ব্লগিং এর জন্য ব্লগারকে তারসাথে মিল রাখতে হয়। মানুষের আগ্রহ হিসেব করে সেই বিষয়ে তথ্য তুলে ধরতে হয়। এরফলে আগ্রহি ভিজিটরের সংখ্যা বাড়তে থাকবে, একসময় তারা আয়ের উতসে পরিনত হবে।

 নিজের বৈশিষ্ট ঠিক রাখাঃ একটা প্রবাদ আছে, যিনি পুতুল নাচ দেখান তিনি পুতুলকে নাচান, নিজে নাচেন না। নিজে নাচলে ব্যালান্স থাকে না। আপনি হুজুগ নিয়ে ব্লগ করতে পারেন, নিজে সেই হুজুগে যোগ দেবেন না। বরং মাথা ঠান্ডা রেখে প্রতিক্রিয়া লক্ষ করুন, ব্লগকে আরো কতটা আকর্ষনীয় করা যায় সেদিকে মনোযোগ দিন। ডিজাইনকে অবহেলা করবেন না। অনেকে খুব ভাল বিষয় পড়ার চেয়ে দেখতে সুন্দর ব্লগ বেশি পছন্দ করেন।

নিজের মত প্রকাশ করুনঃ ব্লগে আপনি তথ্য তুলে ধরার পাশাপাশি নিজের মত প্রকাশ করে ভিজিটরের দৃষ্টি আকর্ষন করতে পারেন। সবাই আপনার সাথে একমত হবেন এমন কথা নেই, বরং অত্যন্ত কড়া সমালোচনা সহ্য করতে হতে পারে। অনেকে ইচ্ছে  করে এমন বক্তব্য তুলে ধরে যেন অন্যরা সমালোচনা করে, প্রতিবাদ করে। জনপ্রিয়তা লাভের এটা একটা প্রচলিত পদ্ধতি। এই একটিমাত্র কারনেই মানুষ বিতর্কিত বিষয় প্রকাশ করে।

ব্লগকে পেশা হিসেবে নিনঃ ব্লগ থেকে আয়কেই মুল আয় হিসেবে ব্যবহার করতে চান, খুব দ্রুত ফল পেতে চান। কাজটি তুলনামুলক সহজ। ভিজিটর নিজে থেকে ব্লগে আসবে ধরে না নিয়ে আনার ব্যবস্থা করুন। বিজ্ঞাপন দিন। বিজ্ঞাপনে কাজ হয়। অনেকে বলেন বর্তমান জগত চলে বিজ্ঞাপনের জোরে। সম্ভাব্য সব যায়গায় বিজ্ঞাপন দিন, মানুষের আগ্রহ তৈরী করুন। যিনি নিয়মিত ইন্টারনেট ব্যবহার করেন না তিনিও একবার ব্লগ দেখার চেষ্টা করবেন।



ব্লগ তৈরী করা সহজ কিন্তু ব্লগ থেকে ব্যবসায়িক সফলতা পাওয়া সহজ না। এটা নিজে থেকে ঘটে না, ঘটাতে হয়। ব্লগিং বিষয়ক তথ্য যত বেশি জানবেন, সেগুলি প্রয়োগ করবেন, সফল হওয়ার সম্ভাবনা তত বেশি।






পোস্ট লেখক:

আপনার একটি মন্তব্য একজন লেখক কে ভালো কিছু লিখার অনুপেরনা যোগাই তাই প্রতিটি পোস্ট পড়ার পর নিজের মতামত জানাতে ভুলবেন না। তবে বন্ধুরা এমন কোন মন্তব্য পোস্ট করবেন না যার ফলে লেখকের মনে আঘাত করে! কারণ একটা ভাল মন্তব্য লেখক কে ভাল কিছু লিখার অনুপেরনা যাগাই !


0 comments:

URS mytrafficvalue
ILM
The Most Popular Traffic Exchange
MX.WORLD